Tollywood মঙ্গল, ১৮ ফেব্রু

Dwitiyo Purush Movie Review

Dwitiyo Purush movie review

Dwitiyo Purush (দ্বিতীয় পুরুষ)

Dwitiyo Purush Rating: ৭/১০

দুর্দান্ত চমক আর রহস্যময় থ্রিলারে মগজে ঝিমঝিম লাগিয়ে দিবে ‘দ্বিতীয় পুরুষ’ - বিস্তারিত...

Dwitiyo Purush Cast: পরমব্রত চট্টোপাধ্যায়, অনির্বাণ ভট্টাচার্য, গৌরব চক্রবর্তী, রাইমা সেন, ঋতব্রত মুখোপাধ্যায়

Dwitiyo Purush Director: সৃজিত মুখোপাধ্যায়

Movie Type: Thriller


গল্পঃ ‘২২ শ্রাবণ’ যেখানে শেষ হয়েছিল, এ ছবির শুরু সেখান থেকেই। শেষের কবিতা পাঠ করে '২২ শ্রাবণ'এ নিজের জীবনের ইতি নিজেই টেনেছিলেন পুলিস অফিসার প্রবীর রায় চৌধুরী (প্রসেনজিৎ চট্টোপাধ্যায়)। মৃত্যুর আগে স্থির মনে তিনি যখন শেষের কবিতা পাঠ করে যাচ্ছেন, অপরদিকে চেয়ারে বাঁধা অবস্থায় অভিজিৎ পাকরাশি শেষটা ঠিক কী হতে চলেছে তা বুঝেই তাঁর স্যার কে কাকুতি মিনতি করে বলছিলেন - 'করবেন না কিন্তু প্রবীর দা এটা'। আজ থেকে ঠিক ৯ বছর আগে '২২ শ্রাবণ'-এর ইতি এভাবে টানেন থ্রিলারখ্যাত পরিচালক সৃজিত মুখোপাধ্যায় (Srijit Mukherji)

২০১১ থেকে ২০২০, ঠিক ৯ বছর পর 'দ্বিতীয় পুরুষ'এ (Dwitiyo Purush) রদবদল হয়েছে অনেককিছুতেই। তবে তারপরেও ছবির শুরু থেকে শেষ মূল আকর্ষণ ধাঁর টা কিন্তু প্রায় একই রেখে দিয়েছেন পরিচালক। বলা যেতে পারে, নতুন মোড়কে পুরনো মালমশলার অনেকটাই অক্ষত রেখেছেন পরিচালক।

ছবিতে অভিজিৎ পাকরাশি (Parambrata Chatterjee) আগের থেকে অনেক বেশি পরিণত, বলা ভালো সময়ের সাথে তাল মিলিয়ে তিনি তাঁর স্যার প্রবীর রায় চৌধুরী কে গুরু মেনেই নিজেকে আরো বেশি তুখোড় পুলিশ অফিসার হিসাবে তৈরি করেছেন। 'সিরিয়াল কিলার'দের ধরতে তিনি অভিজ্ঞ, সুদক্ষ এবং স্বনামধন্য । সেকথা মাথায় রেখেই কুখ্যাত সিরিয়াল কিলার খোকাকে ধরতে তাঁকে দায়িত্ব দেওয়া হয়। এখানেও সহকারি হিসাবে অভিজিৎ পেয়ে যান রজতকে (Gaurav Chakrabarty)। আর ২২ শ্রাবণ এর লিভ ইন পার্টনার অমৃতা (Raima Sen), তাঁর সাংবাদিক বান্ধবী এখন তাঁর ঘরণী

কলকাতার মধ্য়েই এক অন্য কলকাতা দেখালেন সৃজিত। এবার বাংলা সিনেমায় চায়না টাউন ও তাঁর ভিতরের ড্রাগ মাফিয়া ও গ্যাং ওয়ার দেখালেন। চায়না টাউনের অলি-গলি তে পুলিশের সঙ্গে লুকোচুরি খেলতে খেলতেই বড় হয়েছে খোকা (Rwitobroto Mukherjee)। ছেলেবেলা থেকেই সে কুখ্যাত, অপরাধী, মাফিয়া গ্যাংয়ের মাথা। একের পর এক নৃশংস খুন করে যিনি আনন্দ পান, মজা পান। সে শুধু খুন নয়, খুনের পর নিজের স্টাইলে মৃতদেহের কপালে খোকা নামটি খোদাই করে দেয়। সেই খোকা একটা সময় পুলিশের ফাঁদে ধরা পড়ে। জীবনের ২৫ টা বছর জেলেই কেটেই সেই খোকা যখন ছাড়া পায়, সে যেন আরও ভয়ঙ্কর, আরও রোমহর্ষক।

২৫ বছর পরে ফের একেবারে একই জায়গায় একই কায়দায় খুন এবং সেই কুপিয়ে খুন হওয়া দেহের কপালে সেই একই ভাবে খোদাই করে যাওয়া ‘খোকা’ (Anirban Bhattacharya)। তবে কি ফিরে এল সেই নৃশংস কিলার? খুনের মোটিভ ঠিক কী? মাথায় ঝিম ধরিয়ে দেওয়া এসব প্রশ্নের উত্তর বুঝতে গেলে অবশ্যই দর্শককে ছবির শেষ অবধি বসে দেখতে হবে।

চিত্রনাট্যঃ '২২ শ্রাবণ'-এর মতোই টান টান উত্তেজনায় ভরপুর চিত্রনাট্য 'দ্বিতীয় পুরুষ' (Dwitiyo Purush) ছবির মূল রসদ। থ্রিলার বানানোর ক্ষেত্রে পরিচালক সৃজিত মুখোপাধ্যায়ের মুন্সিয়ানা বেশ প্রশংসনীয়। বলা যায়, তিনি দর্শকদের একদম শেষপর্যন্ত হলে বসিয়ে রাখতে জানেন।

অভিনয়ঃ এ গল্পের নায়ক ঠিক কে, বলা বড্ড কঠিন। অভিনয়ের কথা যদি বলতে হয় তাহলে এই ছবিতে একে অপরকে টক্কর দিয়েছেন পরমব্রত চট্টোপাধ্যায় ও অনির্বাণ ভট্টাচার্য। দারুণ অভিনয় করেছেন পরমব্রত এবং গোটা ছবি জুড়ে টানটান বসিয়ে রাখার উত্তেজনা তৈরিতে অনির্বাণ একশোয় একশো। এত বছরের সম্পর্ককে হারাতে না দিতে প্রাণপণ চেষ্টা করা, হিন্দি-বাংলা মিশিয়ে কথা বলা অমৃতার চরিত্রে রাইমা তুমুল হতাশায়, চোখ-ভরা জলে মানানসই। রাইমার পাশাপাশি তেমন কিছু করার ছিল না আবীর, গৌরব কিংবা বাবুল সুপ্রিয়েরও। তবে ছোট্ট চরিত্রে নজর কেড়েছেন দু’জন। রজতের বান্ধবীর চরিত্রে ঋদ্ধিমা এবং খোকার সহযোগী শুভ্র সৌরভ দাস।

মিউজিকঃ সৃজিতের ছবি বরাবরই গানের খাতায় বেশি নম্বর পায়। বরাবরের মতোই এই ছবিতে অনুপম রায়ের সুরে অনবদ্য অরিজিৎ সিং, ইমন চক্রবর্তী ও রূপম ইসলাম।

Comment